Featured

First blog post

This is the post excerpt.

Advertisements

This is your very first post. Click the Edit link to modify or delete it, or start a new post. If you like, use this post to tell readers why you started this blog and what you plan to do with it.

post

29092017

এইযে এত শত নিয়ম কানুন: মন খুলে হাসুন, সুস্থ থাকুন।

কিন্তু এরকম করে আর কতক্ষন?

হাসিওতো থেমে যায় একসময়,

হাসতে হাসতে মনে পড়ে যায়___

কারো টেলিফোন নাম্বারের শেষ তিন সংখ্যা।

তারপর সেই হাসি লীন হয়ে যায়,

ছোট মফস্বলের হঠাৎ হঠাৎ লোড শেডিং এর মত।

হাসতে পারা এত সহজই যদি হতো,

সুস্থ থাকার বিজ্ঞাপন এত জরুরী হবে কেন?

05082017

আচ্ছা আপনি এভাবে চুল বেঁধেছেন কেন শুনি?

স্যরি! আপনিকি আমাকে কিছু বললেন?

বললাম আপনি এভাবে চুল বেঁধেছেন কেন?

তাতে আপনার কি সমস্যা শুনি!

আপনাকে এভাবে ছেলেদের মত চুল বাধতে দেখলে আমার রাজ্যের সব সমস্যা শুরু হয়।

মানে?

আপনি বনলতা সেনকে চেনেন?

আপনার মাথায় সমস্যা আছে?

নাইন্টিন এইটিজের সেলুলয়েডের ফ্রেমে বাঁধানো বনলতা সেনের একটা ছবি পাওয়া গেছে। বনলতা সেন ফুল হাতা মিড ভিক্টোরিয়ান ব্লাউজ পড়ে ঝুল বারান্দায় দাঁড়িয়ে ঠিক আপনার মত চুল বাধতো।

অসভ্য আপনি।

একদমই না।

অসভ্য তো ছিলো জীবনানন্দ বাবু।

আপনি এখন আসুন তো।

আচ্ছা আপনি এভাবেই যদি চুল বাধতে চান তবে বনলতা সেন হয়ে যাচ্ছেন না কেন? ফুল হাতা মিড ভিক্টোরিয়ান ব্লাউজ পড়ে চায়ের কাপে শব্দ করে চা খাবেন।

আপনি একটা যা তা। সহ্যের সীমা ছাড়িয়ে যাচ্ছেন।

আমিতো কেবল বনলতা সেন কে আমার সীমার মধ্যে আনতে চাচ্ছিলাম।

তাহলে কাল রাতে বললে কেন আমায় নিয়ে আর কবিতা লিখবেনা।

তোমার কিছু আসে যায় তাতে?

কথা বলবেনা আমার সাথে। আবার বন্ধ কথা বলা। ২৪ ঘন্টা পর সামনে আসবে আবার।

সব দোষ প্রতিবার আমার?

আমার দোষটা কি শুনি।

বলবো? তো?

বলবেনা কেন?

ইয়ে মানে কাল রাতে চুল ছেড়ে ঘুমোওনি কেন তুমি? ঢং!!!

চুল ছেড়ে ঘুমোলে কি হয় শুনি?

বনলতা সেনের ভেজা চুলের গন্ধ পাওয়া যায়।।।

24082017

ঘুম থেকে উঠে জোড়া শালিক দেখে ফেললে

ভয় পেয়ে মুখ লুকোলে এক পশলা স্মৃতির গভীরে,

ঠিক তখনই বুঝতে পারলে-

কপালের টিপ ঠিক জায়গায় নেই।

ততক্ষনে আমার জাহাজ বন্দর ছেড়ে বহুদূর-

একটা নক্ষত্রের উঠোনের মত জাহাজের বিশাল ডেকে আমি চেয়ার পেতে বসে,

রেডিওতে তখনও শোনা যাচ্ছিলো আজ সকালে তোমার মন খারাপ ছিলো।

অথচ নীল রঙের একটা সোয়েটারে আমি তখনও তোমার ঘ্রান পাচ্ছিলাম,

অথচ সাগরের নীলও নীল, আকাশের নীলও নীল, আমার ভালো লাগা,

কিংবা তোমার নীল টিপ কিংবা নীল কালিতে লেখা একটা আধেক কবিতা,

কিংবা নীল কালিতে তোমাকে লিখা আমার প্রথম চিঠি।

ক্রমশ আমার চোখের সামনে থেকে শহর হাড়িয়ে যায়,

রেডিও বন্ধ হয়ে যায়, সাগরের নীল আরো নীল হয়ে যায়,

তোমার মন খারাপের সকাল কিংবা ভূল করে পড়া একটি টিপের কথা

কিংবা আমার নীল কালীতে লিখা কবিতা গুলো হাড়িয়ে যায়।

প্রতিদিন, প্রতিবেলা, প্রতিক্ষন,

একটা নক্ষত্রের উঠোনের মত জাহাজের বিশাল ডেকে আমি চেয়ার পেতে বসে।